Alapon

দক্ষিণ এশিয়ার ২য় বৃহত্তম কুমির খামার


কুমির তো চিড়িয়াখানাতেই দেখা যায়।খামারে গিয়ে দেখার আবার কি মজা !

যখনি এই চিন্তা মাথায় এলো, তখনি অন্য চিন্তা মাথায় ঢুকালাম,নতুন একটা জায়গাতে তো আমার পা পড়বে!

এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম কুমিরের খামার রয়েছে বাংলাদেশে।সেই কুমিরের খামারের গল্পই শোনাবো আজ।

প্রথমে আপনাকে আসতে হবে কক্সবাজার।কক্সবাজারের টার্মিনাল থেকে টেকনাফের 'সরাসরি' কিংবা 'পালকি' বাসে করে ঠিক কুতুপালং বাজারের পরেই টিভি টাওয়ার জায়গা নামতে হবে।
এখান থেকে আপনি চাইলে টমটমে রিজার্ভ নিয়ে নিতে পারেন।সেক্ষেত্রে আপনি মিস করবেন অনেক কিছুই!

হাঁটতে হবে ২-২.৫ কি.মি।হাতের বামে দিকে একটা সাইনবোর্ড পড়বে কুমিরের খামারের।কাঁচা রাস্তা।কিছুক্ষণ হাঁটলেই পেয়ে যাবেন রাবার বাগান।

রাবার বাগান থেকে কিছুটা সামনে পড়বে ড্রাগণ ফলস বাগান।প্রকৃতির অপরুপ সৌন্দর্য যেনো শুরু এখান থেকেই। অদূরে দেখা যাচ্ছে, বান্দারবনের পাহাড়।

এখান থেকে আর কিছুদূর হাঁটলেই কুমিরের খামারে আরেকটি সাইনবোর্ড পড়বে।যেতে হবে এবার বামে।

মিনিট পাঁচেক হাঁটলেই কুমির খামারের গেইট।যেতে যেতে পাশে পড়বে সুদৃশ্য দোতলা এক বাগানবাড়ি,কমলা,আনারস,খেঁজুরের চাষের জমি।

ঢুকতেই প্রবেশমূল্য দিতে হবে ৫০ টাকা।এরপর শুরু হয়ে যাক, কুমির দেখা।

ছোট বড় অবিশ্বাস্য রকমের শত শত কুমির,আপনার চিড়িয়াখানার কুমির দেখার ধারণাকে পরির্বতন করে দিবে।

এতো বড় বড় কুমির এর আগে কখনো দেখেছি বলে মনে হয় না।

দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ২৪ টি কুমির আনার মাধ্যমে শুরু হয় এই খামার।

বেশ কিছু অদেখা পাখিও দেখা যাবে এই খামারে।দেখা যাবে রাজহাঁস কিংবা টারকি,এক শিকল পড়ানো বানরের বন্দী জীবন।

কুমির খামারটি অর্থায়ন করেছে আকিজ গ্রুপ।

পঠিত : ৮৯৯ বার

ads

মন্তব্য: ০