Alapon

এই মুহূর্তে দেশের জনগণকে বাংলাদেশ সরকারের যেই প্রশ্নগুলোর উত্তর দেয়া প্রয়োজন...


১) সরকার কি কোভিড-১৯ রোধে রিএক্টিভ প্রস্তুতি নিয়েছে নাকি প্রোএকটিভ? অবস্থা দৃষ্টে মনে হচ্ছে রিএক্টিভ যা অবশ্যই পর্যাপ্ত নয়। কারন এখন সবাই জানি যেই সব দেশ প্রোএক্টিভ ব্যবস্থা গ্রহন করেছে যেমন তাইওয়ান, সিংগাপুর, তুরস্ক তাদের অবস্থা তুলনামূলক ভাবে আন্ডার কন্ট্রোল দেন রিএক্টিভ যেমন ইতালি, ইরান সহ পুরা ইয়োরোপ।


২) বাংলাদেশের সব সরকারী বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে এই মুহূর্তে কতগুলো হাসপাতালে কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য প্রস্তুতি গ্রহন করেছে? সেইসব হাসপাতালের লিস্ট কবে জনগনের কাছে পাবলিশ করবে?


৩) সকল হাসপাতালে মোট কতো আইসিইউ বেড আছে? জেলাভিত্তিক এই পরিসংখ্যান সরকার কবে জনগণকে দিবে?


৪) সকল হাসপাতালে আইসিইউ তে কতো শ্বাসপ্রশ্বাসের ভেন্টিলেটার আছে? এর বাইরে সরকার আর কতো ভেন্টিলেটার আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে?


৫) ঢাকা ছাড়া দেশের আর কোন কোন জায়গায় ভাইরাস সনাক্তকরনের ল্যাবেরেটরি আছে? সেই লিস্ট কোথায়?


৬)দেশের সরকারী আর বেসরকারী ল্যাবেরটরি মিলিয়ে দৈনিক কতো কোভিড-১৯ রোগির স্যাম্পেল টেস্ট করার সক্ষমতা আছে?


৭) এই মুহূর্তে বাংলাদেশে নভেল করোনা 2019-nCov সনাক্তকরনের মোট কীট সংখ্যা কতো?


৮) কোভিড১৯ এর ভাইরাস সনাক্ত করতে জনস্বাস্থ্য পরীক্ষাগারগুলোর যেসব রিজেন্টসের প্রয়োজন বাংলাদেশ সেগুলো কোথা থেকে আমদানি করছে?


৯) ইন কেইস অফ আউটব্রেক ডাক্তার, নার্স, এবং হাসপাতালগুলোর মাঝে সমন্বয়ের প্রস্তুতি কি কমপ্লিট? এই ব্যাপারে সরকার কি কি পদক্ষেপ গ্রহন করেছে?


১০) সরকার কি দেশের জনগণকে ফ্রি মাস্ক আর ডিসইনফেকটেন্ট বিতরন করবে? দেশে কি পর্যাপ্ত মাস্ক আছে? না থাকলে সেই ব্যাপারে সরকার কি পদক্ষেপ নিয়েছে?


১১) গ্রামে গঞ্জে শহরতলীতে জনগণকে কিভাবে এই ভাইরাসের ব্যাপারে সচেতন করা হচ্ছে? বস্তিগুলোর কি অবস্থা?


১২) ইন কেইস অফ আউটব্রেক দেশের গরীবদের চিকিৎসার কি ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার?


১৩) হজ্জ ক্যাম্প ছাড়া আর কোথায় কোথায় সাসপেক্টেড রোগীদের আইসোলেশানে রাখা হয়েছে বা রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে?


১৪) ইন কেইস অফ আউটব্রেক, জনগণকে কিভাবে জানানো হবে তারা যেন ইনফেক্টেড এরিয়া এড়িয়ে চলে? দক্ষিন কোরিয়ার জনগণকে এই ব্যাপারে মোবাইল এপ দিয়ে জানান দেয়া হচ্ছে সংক্রমিত কোন কোন জায়গায় যাওয়া নিষেধ, তাতে করে জনগন সচেতনভাবেই এলাকা এড়িয়ে রোগ এড়াচ্ছে।


১৫) জনগণ যেন মব মেন্টালিটি নিয়ে সাসপেকটেড কাউকে আক্রমন না করে সেই ব্যাপারে সরকারের পদক্ষেপ কি?


১৬) অন্যান্য আক্রান্ত দেশ থেকে বাংলাদেশের সরকার আর মেডিক্যাল কমিউনিটি কিভাবে শিক্ষা গ্রহন করছে? নাকি সব নিজেরাই পারি, দেখিয়ে দাও বাংলাদেশ ফিলোসফি ধরে বসে আছে?


১৭) ইন কেইস অফ আউটব্রেক ব্যবসা বানিজ্য, অফিস আদালত বন্ধ করতে হলে যে অর্থনৈতিক মন্দার সৃষ্টি হবে তার থেকে পরিত্রাণে সাধারন মানুষকে কি কি ধরনের অর্থনৈতিক সহায়তা সরবরাহ করবে সরকার?


বেশীরভাগ প্রশ্নের উত্তরে সরকার যদি শেখ হাসিনার জয়গান গায় তাহলে বুঝবেন তাদের কার্যকর তেমন কোন প্রিপারেশান নেই। They have taken a reactive policy rather than proactive policy.


এরা শেখ হাসিনাকে তেল মেরে গদি রক্ষা করতে পারবে ঠিকই , তবে এই ভাইরাস কিন্তু কে প্রধানমন্ত্রী, কে স্বাস্থ্যমন্ত্রী, কে আওয়ামী লীগ, কে বিএনপি, কে জামায়াত, কে শিবির কিছুই মানবে না। একে দোষীয়ে ওর দিকে আঙ্গুল তুলেও কেউ পার পাবে না। দেশে যখন মহামারি দেখা দিবে সবাই তখন টুপটাপ ঝড়ে পড়বে। প্রত্যেককে এই ঝড় কোন না কোন ভাবে আঘাত করবে।


সাংবাদিকগন, যেভাবে পারুন সরকারকে উপরের প্রশ্নগুলো করুন আর জবাব দিতে বাধ্য করুন।যেভাবেই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসুক না কেন বৃহৎ জনগনের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলার অধিকার কারো নেই।

@Sabina Ahmed

পঠিত : ১৪০ বার

ads

মন্তব্য: ০