Alapon

কিভাবে মনে রাখবে তোমায়?

শুভ জন্মদিন লিজেন্ড।
তোমার বিষয় বিস্তারিত লিখতে গেলে, হয়তো কম হয়ে যাবে, হয়তো অনেক কিছুই বাদ পরে যাবে। আর তোমার বিষয় কি'ই বা লিখতে পারে আমার মত সামান্য কলমধারী। তোমায় নিয়া গল্প করব, নাতিদের সাথে। তারা অবাক হয়ে শুনবে রুপকথার মতো বাস্তবতা।

মুহাম্মদ ইউনূস ১৯৭৬ সালে গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেন গরিব বাংলাদেশীদের মধ্যে ঋণ দেবার জন্য। তখন থেকে গ্রামীণ ব্যাংক ৫.৩ মিলিয়ন ঋণগ্রহীতার মধ্যে ৫.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ প্রদান করে। ঋণের টাকা ফেরত নিশ্চিত করার জন্য গ্রামীণ ব্যাংক "সংহতি দল" পদ্ধতি ব্যবহার করে। একটি অনানুষ্ঠানিক ছোট দল একত্রে ঋণের জন্য আবেদন করে এবং এর সদস্যবৃন্দ একে অন্যের জামিনদার হিসেবে থাকে এবং একে অন্যের উন্নয়নে সাহায্য করে। ব্যাংকের পরিধি বাড়ার সাথে সাথে গরিবকে রক্ষা করার জন্য ব্যাংক অন্যান্য পদ্ধতিও প্রয়োগ করে। ক্ষুদ্রঋণের সাথে যোগ হয় গৃহঋণ, মৎস খামাড় এবং সেচ ঋণ প্রকল্প সহ অন্যান্য ব্যাংকিং ব্যাবস্থা। গরিবের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গ্রামীণ ব্যাংকের সাফল্য উন্নত বিশ্ব এমন কি যুক্তরাষ্ট্র সহ অন্যান্য শিল্পোন্নত দেশসমূহকে গ্রামীণের এই মডেল ব্যবহার করতে উদ্ভুদ্ধ হয়।

সবাই'ই তোমার কথা এত্ত জানে যে, আমি বললে ভুলই থেকে যাবে। তোমার মত লিজেন্ডের জন্ম হোক এই বাংলার প্রতিটি ঘরে। শুভ জন্মদিন লিজেন্ড।

পঠিত : ৫৭ বার

ads

মন্তব্য: ০