Alapon

অতি স্বল্প মূল্যে ইসলামকে বিকিয়ে দিচ্ছেন না তো...?


এক সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে দেখি আব্বাজি এক ঝুড়ি আম নিয়ে হাজির। আম নিয়ে এসে আব্বা আম্মাকে আম কেনার গল্প শোনাচ্ছেন। আর আম্মা মন্ত্রমুগ্ধের মত আব্বার গল্প শুনে যাচ্ছেন। আব্বার চোখে-মুখে বিজয়ের হাসি, তুলনামূলক কমদামে আম কিনেছেন কিনা!

আব্বার বিজয়ের হাসি মলিন করে দিতে হাজির হল আমার ছোট ভাই। একটা চাকু নিয়ে আম কেটে মুখে দিয়েই ‘থু’ ‘থু’ করে উঠল! তারপর বলল, ‘ইয়া আল্লাহ! এই আম খাবে কীভাবে, এতো টক!’
এই কথা শোনা মাত্রই আব্বার মুখের বিজয়ের হাসি ফুড়ুৎ করে উড়ে গেল। আব্বার মুখটা মলিন হয়ে যাওয়ায় আম্মা মুখটাও বর্ষার কালো মেঘে ঢাকা পড়ে গেল।

তারপর আব্বাজি নিজে একটা আম পরখ করে খাওয়ার পর বললেন, ‘কারে বিশ্বাস করবো! দোকানদারের মুখে দাড়ি, মাথায় টুপি, পরনে লম্বা জুব্বা। সে বলল, এই আম নিয়া যান। আমার কথা আজীবন মনে রাখতে হইবো!’

দোকানদারের কথা অবশ্য সত্য! সেই আমওয়ালাকে আব্বাজি হয়তো সারাজীবনই মনে রাখবেন। কারণ, সে তার মুখের দাড়ি, মাথার টুপি, পরনের লম্বা জুব্বা আর মুখের মিষ্টি কথা দিয়ে আব্বার হাতে এক ঝুড়ি অচল আম ধরিয়ে দিয়েছিল। আব্বার এ কথা নিশ্চয়ই সহসা ভুলে যাওয়ার কথা নয়।

অতঃপর আব্বাজি বললেন, ‘অন্য কোনো দোকানদার যদি এই কাজ করতো তবে হয়তো কষ্ট পেতাম না! কিন্তু লোকটাকে দেখে নামাজি মনে হয়েছিল, লেবাসও তা-ই বলে! সে কারণেই তার কাছে আম নিয়েছিলাম। আর তার কাছেই কিনা ঠকতে হলো!’

দিন কয়েক আগে এক ভাইয়ের সাথে ব্যবসায় বিনিয়োগ নিয়ে কথা হচ্ছিল। তিনি কথায় কথায় ‘আলহামদুলিল্লাহ, আল্লাহু আকবার, সুবহানআল্লাহ, জাজাকাল্লাহ’ বলছিলেন। তো আমার সাথে থাকা আর এক ভাই বললেন, লোকটাকে তো ধার্মিক বলেই মনে হচ্ছে। তার সাথে ব্যবসা করা যায়। কী বলেন?

তাকে বললাম, ‘মুখে এমন সারাদিন ‘আল্লাহু আকবার’ ‘সুবহানআল্লাহ’ বলা লোকগুলোকেই আমি সবচেয়ে বেশি অবিশ্বাস করি। কারণ, সে সম্মুখে এসব এসব বলা মানেই যে ভালো মানুষ তা নয়! বরং, আমার জীবনের স্বল্প অভিজ্ঞতা বলে, সম্মুখে আল্লাহ রাসূলের নাম বেশি বেশি বলা লোকগুলোই বাটপার হয়। কারণ, তারা জানে আমরা যে যেমন আমলদারই হই না কেন, ইসলামের ব্যাপারে সবাই ইমোশনাল। যার কারণেই দেখবেন, ভোটের সময় বেনামাজি প্রার্থীও মাথায় টুপি গায়ে পাঞ্জাবী দিয়ে ভোট চাইতে যায়। আর যারা বাটপার তারা কনভিন্স করার জন্য সম্মুখে এমন বার বার আল্লাহ রাসূলের নাম নেয়! অতএব, আমি এই লোকের সাথে ব্যবসা করার ব্যাপারে আগ্রহী নই।’

এমন অনেকেই আছে যারা ইসলামকে ব্যবহার করে মানুষের সাথে প্রতারণা করে, বাটপারি করে। আবার অনেক ব্যবসায়ী আছে, যারা ইসলামি লেবাস পরিধান করে দুই নাম্বার পন্য বিক্রি করে, পঁচা পন্য বিক্রি করে। এভাবে মূলত তারা ইসলামকেই বিকিয়ে দিচ্ছে। তারা নিজেদের ক্ষুদ্র স্বার্থ চরিতার্থ করতে ইসলামকে খুব স্বল্প মূল্যে বিকিয়ে দিচ্ছে। ফলে, সাধারণ মানুষ ইসলাম নিয়ে প্রশ্ন করার সুযোগ পাচ্ছে। আসুন, নিজের ক্ষুদ্র স্বার্থের জন্য ইসলামকে অতি স্বল্প মূল্যে বিকিয়ে না দেই। আল্লাহ আমাদের উত্তম বুঝ দান করুন।

পঠিত : ২২ বার

ads

মন্তব্য: ০