Alapon

সিরাজুল আলম খান এবং কিছু কথা...



বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে "আন্ডাররেটেড" ব্যক্তি সম্ভবত সিরাজুল আলম খান। চ্যানেল আইয়ের তৃতীয় মাত্রা অনুষ্ঠানে ৭০ সালের ডাকসু ভিপি ও জতীয় পতাকা উত্তোলনকারী আসম আব্দুর রব এবং স্বাধীনতার ইশতেহারে পাঠক শাহজাহান সিরাজ বলেছিলো, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমান। কিন্তু স্বাধীনতার রুপকার সিরাজুল আলম খান। জাসদ সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া বলেছিলেন, শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন তবে তিনি এটা পারতেন না যদি সিরাজুল আলম খান এবং নিউক্লিয়াস নিয়ন্ত্রিত ছাত্রলীগ শেখ মুজিবুর রহমানকে সমর্থন না করতো।

পূর্ব পাকিস্তানকে স্বাধীন করার লক্ষ্যে ১৯৬২ সালে সিরাজুল আলম খান আব্দুর রাজ্জাক ও কাজী আরেফ আহমদকে নিয়ে গঠন করেন গুপ্ত সংগঠন নিউক্লিয়াস। এই নিউক্লিয়াসের নেতৃত্বেই ছাত্র আন্দোলন, ৬ দফা, ১১ দফাসহ যাবতীয় আন্দোলন হয়। সিরাজুল আলম খানের প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে নতুন সংগঠন শ্রমিক লীগ, বিএলএফ, জয় বাংলা বাহিনী এবং মুজিব বাহিনী গঠিত হয়। স্বাধীন বাংলার জাতীয় পতাকা ও জাতীয় সঙ্গীত নির্ধারণ, জয় বাংলা শ্লোগান, বঙ্গবন্ধু উপাধি, ২রা মার্চ আ স ম আব্দুর রব কর্তৃক স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন, ৩রা মার্চ শাজাহান সিরাজ কর্তৃক স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ, ৭ই মার্চ শেখ মুজিব কর্তৃক "এবারের সংগ্রাম, মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম"- এই ঘোষণা ছাড়াও অসংখ্য ঐতিহাসিক ঘটনার নায়ক ও রুপকার এই নিউক্লিয়াস এবং সিরাজুল আলম খান।

আওয়ামী লীগ সিরাজুল আলম খানকে নিয়ে একটা " ইনফেরিয়োরিটি কমপ্লেক্সে ভোগে"। ২০১৯ সালে 'আমি সিরাজুল আলম খানঃ একটি রাজনৈতিক জীবনালেখ্য' বই প্রকাশের পরে শেখ হাসিনার সরকার বইটা নিষিদ্ধ করে দেয়।

আজ বাংলাদেশের রাজনীতির রহস্য পুরুষ সিরাজুল আলম খান দাদা ভাই ৮০তম জন্ম বার্ষিকী।

সিরাজুল আলম খান সম্পর্কে জানতে পড়তে পারেন,
1. স্বাধীনতা, সশস্ত্র সংগ্রাম এবং আগামীর বাংলাদেশ- সিরাজুল আলম খান
2. আমি সিরাজুল আলম খানঃ একটি রাজনৈতিক জীবনালেখ্য- শামসুদ্দিন পেয়ারা
3. সিরাজুল আলম খান এবং স্বাধীনতার নিউক্লিয়াস- মহিউদ্দিন আহমেদ

পঠিত : ৮৬ বার

ads

মন্তব্য: ০