Alapon

জেনারেল আজিজের ভাইয়েরা প্রধানমন্ত্রীর অতি আপন লোক!



আল জাজিরা টেলিভিশনের বাংলাদেশ নিয়ে অনুসন্ধানী রিপোর্ট ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার ম্যান’ নিয়ে আলোচনা যেন শেষই হচ্ছে না। বরঞ্জ, সেনা প্রধানের একটি বক্তব্য এই আলোচনাকে নতুন করে প্রাণ দিয়েছে। সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ বলেছেন, ‘আমাকে সেনা প্রধান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই আমাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা মানে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্নবিদ্ধ করা।’

যারা এই অনুষ্ঠানের নাম ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার ম্যান’ নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন, তারা নিশ্চয়ই এইবার তাওবা করে নিবেন। কারণ, তাদের বক্তব্য ছিল, যদিও এই রিপোর্টের সিংহভাগ জুড়ে জেনারেল আজিজের সন্ত্রাসী ভাইদের কর্মকান্ড উঠে এসেছে। কিন্তু এই অনুষ্ঠানের নাম ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার ম্যান’ দিয়ে মূলত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। এখন সেনাপ্রধানের বক্তব্য শুনে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন, এই অনুষ্ঠানের নাম ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার ম্যান’ রাখার যৌক্তিকতা!

এরপরও যদি বুঝতে না পারেন, তাহলে আপনাদের জ্ঞাতার্থে আরও একটি বিষয় ‍তুলে ধরছি। সম্প্রতি বলা হচ্ছে সেনা প্রধানের যে দুই ভাইকে আল জাজিরা পলাতক আসামী হিসেবে উপস্থাপন করেছে, তাদের ২০১৯ সালেই সাজা মওকুফ করে দেওয়া হয়েছে। যদিও আল জাজিরার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে ফেব্রুয়ারীর ১ তারিখে। এরপরে সরকার আল জাজিরার রিপোর্ট নিয়ে বহু কথা বললেও, তাদের শাস্তি যে মওকুফ করে দেওয়া হয়েছে সে কথা বলেনি। রিপোর্ট প্রকাশ হওয়ার ১৫ দিন পর দেশবাসী হঠাৎ জানতে পারলো ২০১৯ সালেই তাদের সাজা মওকুফ করে দেওয়া হয়েছে।

এখন আসল কথায় আসি। যে সকল আসামীদের সাজা মাফ করে দেওয়া হয়, তাদের অবশ্যই আদালতে আন্তসমর্পন করতে হয়। কিন্তু তাদের দুই ভাইয়ের একজনও আত্মসমর্পন করেনি। এরপরও তাদের সাজা মাফ করে দেওয়া হয়েছে। আর রাষ্ট্রপতি যাদের সাজা মাফ করেন, তাদের ব্যাপারে আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সুপারিশ করতে হয়। আর প্রধানমন্ত্রী তাদের ব্যাপারেই সুপারিশ করবেন, যারা প্রধানমন্ত্রীর কাছের লোক। আর জেনারেল আজিজের ভাইয়েরা নিশ্চয়ই প্রধানমন্ত্রীর কাছের লোক, না হলে তিনি তাদের সাজা মওকুফের জন্য সুপারিশ করবেন কেন! আর সুপারিশ তো করেছেনই সাথে আইনের ধারার নিয়মি-নীতিরও তোয়াক্কা করেননি।

যে আইন অনুসারে তাদের সাজা মওকুফ করা হয়েছে, সেই আইনের শর্ত হলো, আসামীকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। তাদের আইনের কাছে আত্মসমর্পন করতে হবে। আত্মসমর্পন করলেই কোনো আসামী এই আইনের সুবিধা ভোগ করবার অধিকার রাখে। কিন্তু জেনারেল আজিজের ভাইদের ক্ষেত্রে আইনের এই নিয়ম মানা হয়নি। আর নিয়ম মানা হবেই বা কেন, জেনারেল আজিজের ভাইয়েরা যে প্রধানমন্ত্রীর খাস লোক!

পঠিত : ১৬০ বার

ads

মন্তব্য: ০