Alapon

মোদির পুতদের হাতে লাঞ্চিত আল্লামা মামুনুল হক




সেদিন মাওলানা মামুনুল হকের সাথে ঘটে যাওয়া পুরো ভিডিও দেখলাম। ভদ্রলোক তাঁর ২য় স্ত্রী নিয়ে ওখানে গিয়েছেন সময় কাটাতে, তাঁর নিজ মুখের স্বীকৃতিতে শুনলাম। বাংলাদেশের নাগরিক মামুনুল হক ইসলাম ও সামাজিক অনুমোদিত অধিকারের চর্চায় কারো সমস্যা হওয়ার কথা নয়। কিন্তু যেহেতু চলমান ফ্যাসিবাদ ও আধিপত্যবাদ বিরোধীতায় মামুনুল এই মুহুর্তে গোটা বাংলাদেশে একক অবস্থানে আছে কাজেই সরকারীদল ও গোয়েন্দারা অপকৌশলের মাধ্যমে তাঁকে হেনস্থা করতে চাচ্ছে।

খুশির বিষয়, মামুনুল হককে শুরুতে একটু নার্ভাস দেখালেও মুহুর্তে ইউটার্ন নিয়ে কঠিন হুংকার দিয়েছেন। যদি এই মহিলা তাঁর স্ত্রী না হতো, তাহলে এমন সৎ সাহস দেখানো সম্ভব ছিলোনা। এতোগুলো জানোয়ারের মধ্যিখানে দাঁড়িয়ে কঠিন ভাষায় মামুনুলের হুংকার ছিলো বাঘের গর্জনের মত। জানোয়ারদের বিপক্ষে এভাবেই মামুনুলদের জাগরন দরকার।

যাই হোক, ধর্ম-সমাজ বাদ দিয়ে বলি, আওয়ামী-বামরা তো সেক্যুলার আইন-কানুন-জীবনে বিশ্বাসী। তাদের সেক্যুলার আইনে তো বলা আছে যে, প্রাপ্ত বয়স্ক দুজন সম্মতির ভিত্তিতে নিজেরা যা খুশি তা-ই করার অধিকার রাখে। এবং এতে বাধা দেওয়ার এখতিয়ার কেউ রাখে না। কিন্তু সেই সেক্যুলার সাংবাদিক আর জানোয়ার লীগ ওনার জামা-কাপড় ছিঁড়ে লাঞ্চিত-অপমানিত করার এই অধিকার পাইলো কোথায়? ?

মামুনুল হক যদি আল্লাহর আইন ভাঙে তাহলে আল্লাহর কাছে তিনি অপরাধী। আল্লাহ সাজা দিবেন। যেহেতু রাষ্ট্রে আল্লাহর আইন বলবত নেই, তাই এর কোনো সাজা দেওয়ার অধিকার রাখে না রাষ্ট্র- প্রশাসন।

কিন্তু এই সেক্যুলাররা তো স্বয়ং তাদের পূজনীয় সংবিধান আর দেশীয় আইন লঙ্গন করেছে। ইসলামের বিধিমালা বাদই দিলাম, এরা তো নিজেদের সেক্যুলার আইনও মানে না! কী জাতের বর্বর আর ভণ্ড এগুলো!! এই কুলাঙ্গারদেরকে এখন দেশীয় আইনে সাজা দেওয়া ওয়াজিব হয়ে গেছে। এখন না পারলেও এই মোদির পুতদের সবগুলোর চেহারা-পরিচয় চিনে রাখা দরকার। কে কোথায় কারে নিয়ে ঘুরতে যাবে এটা তো তার ব্যক্তিগত অধিকার বলেই এই মুদির পুতেরা মনে করে। সেখানে উনি তার স্ত্রী নিয়ে ঘুরতে গিয়েছে বলে এরকম লাঞ্চিত হতে হয়েছে, সত্যিই বিব্রতকর!! মোটেই মেনে নেওয়ার মতো নয় বিষয়টি।

এরা শুধু মামুনুল হককে লাঞ্চিত করে, সেখানে তথা রিসোর্টে হামলা করে থেমে থাকেনি। তারা এরপর আশ্রয় নিলো মহা ভাঁওতাবাজি আর বাটপারির। আর তা হলো কথিত কল রেকর্ড ফাঁস।

সময় টিভি গতো বছর আমীরে জামায়াত ডাক্তার শফিকুর রহমান এবং মামুনুল হকের ভাই মাওলানা মাহফুজুল হকের সঙ্গে একটা ভুয়া কল রেকর্ড ফাস করেছে। শাহবাগীরা ১৩ সালে মজলুম আলীমে দ্বীন আল্লামা সাঈদী সাহেবের নামে এরকম জঘন্য ভুয়া সেক্সি ফোনালাপ বানাইছে। এবার হিন্দুত্ববাদী চ্যানেল একাত্তর টিভি আল্লামা মামুনুল হক সাহেবের ফোনালাপ বানাইছে। আমি সাথে সাথে জঘন্য এই টিভির ফোনালাপের ওপর ঈমান না এনে অবিশ্বাস করে আমি আমার দৃঢ় ঈমানের পরিচয় দিয়েছি।

আমি রাম-বাম-আওয়ামীদের প্রত্যেকের চরিত্র জানি, মানে শাহবাগী নর্দমার কীটপতঙ্গগুলোর কামকাজ আরকি। তাই আমি এতে মোটেও বিশ্বাসী নয়। আর একজন ঈমানদার কখনো একাত্তর মার্কা টিভি নিউজ বিশ্বাস করতে পারে না। আমি চাই এদেরকে সময় মতো ধরে ধরে সাইজ করা হোক! এদের কাউকেই ছাড় দেওয়া না হোক!

পঠিত : ২২১ বার

ads

মন্তব্য: ০