Alapon

আমীরে হেফাজতের দৃষ্টিতে লীগ ও জামায়াত



ভাগ্নে জুনায়েদ বাবুনগরীর ইন্তেকাল করার পর মামা মহিবুল্লাহ বাবুনগরী হেফাজতের আমীর মনোনীত হন। এরপর গতকাল তিনি তার বাসায় কিছু সাংবাদিকের সাথে কথা বলেন। সাংবাদিকরা দু'টি দলের সাথে হেফাজতের সম্পর্ক নিয়ে তাকে প্রশ্ন করে।

দল দুটি হলো আওয়ামী লীগ ও জামায়াতে ইসলাম।

লীগের সাথে হেফাজতের সম্পর্ক নিয়ে আমীরে হেফাজত বলেন, কওমিদের নিয়ে বর্তমান সরকারের আন্তরিকতায় আমরা খুশি। সরকারের পতন কিংবা কাউকে গদিতে বসানো আমাদের আন্দোলনের উদ্দেশ্য নয়। আমরা মুসলিম, কোরআন এবং হাদিস মেনে চলতে হবে। কোরআন পরিপন্থী কোনো আইন চাপিয়ে দিলে আমরা বিরোধিতা করব। আন্দোলন করব। আওয়ামী লীগ সরকার ২০০ বছর ক্ষমতায় থাকলেও আমাদের কোনো সমস্যা নেই।

জামায়াতের সাথে হেফাজতের সম্পর্ক নিয়ে আমীরে হেফাজত বলেন, জামায়াতের সঙ্গে হেফাজতের আদর্শিক কোনো সম্পর্ক নেই। বরং কওমি আলেমরা জামায়াতের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকে সব সময়। দেওবন্দের অন্যতম অলি আল্লামা হোসাইন আহমদ মাদানি জামায়াতের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন। আমরা তাঁর অনুসারী হিসেবে এখনো জামায়াতের বিরুদ্ধে কথা বলি। তাই জামায়াতের সঙ্গে কওমিদের কোনো ঐক্য হতে পারে না। আদর্শিক কারণেই কওমিদের সঙ্গে জামায়াতের দূরত্ব ঐতিহাসিকভাবে স্বীকৃত।

এই প্রথম কোনো কওমি নেতা সত্য কথা বলেছেন। তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন হুসাইন আহমেদ মাদানীকে তারা হকের মানদণ্ড হিসেবে মেনে নিয়েছেন। যেহেতু মাদানী বিরোধীতা করেছে তাই আমরা বিরোধীতা করে যাচ্ছি। আগে কওমি নেতারা বলতেন, জামায়াতের আকিদা খারাপ, তারা সাহাবাদের অপদস্ত করে। এজন্য তারা জামায়াতের বিরোধীতা করে।

যুগে যুগে এদেশে কওমি আলেমদের বড় অংশ জুলুমকে সাপোর্ট করে গিয়েছে। পাড়া মহল্লায় এই কওমি আলেমরা ক্ষমতাসীনদের জুলুমের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছেন। সুতরাং আওয়ামীলীগের ব্যাপারে তাদের আমীরের মূল্যায়ন সঠিক।

এই দুটি দল সম্পর্কে আমীরে হেফাজতের মূল্যায়নকে স্বাগত জানাচ্ছি। তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

কেন মাদানী জামায়াতের বিরোধীতা করেছিল এই ব্যাপারে যারা কৌতুহলী আছেন তাদের জন্য কমেন্টে একটি লেখা শেয়ার করা হবে।

পঠিত : ১৬৯ বার

ads

মন্তব্য: ২

২০২১-০৯-১৯ ১৯:৪১

User
আহমেদ আফগানী

http://www.ahmedafgani.com/2021/08/blog-post_26.html

submit

২০২১-০৯-২১ ১৪:১৬

User
সামিউল ইসলাম বাবু :

আপনার লিংকে কাজ করে নাতো...

submit