Alapon

সরকার চায় ভয়ের রাজত্ব কায়েম করতে...



সবেমাত্র একটা দুইটা করে লাশ পড়তে শুরু করেছে। প্রথমে ভোলাতে, তারপর নারায়ণগঞ্জে আর আজ মুন্সিগঞ্জে লাশ পড়লো৷ এভাবে একটা দুইটা করে লাশ দেখতে দেখতে জনগণ লাশ দেখতে অভ্যস্থ হয়ে যাবে৷ তারপর শুরু হবে ক্রসফায়ার!

খুব সম্ভবত, ১৪-১৫ সালে সরকার একটি ক্রসফায়ারের লিস্ট করেছিল৷ সেই লিস্টের অনেককেই ক্রসফায়ার দেওয়া হয়েছে। আর আন্দোলন থেমে যাওয়ার কারণে অনেকে ক্রসফায়ার থেকে রক্ষা পেয়েছে৷ নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে সেই লিস্ট ধরে ধরে ক্রসফায়ার দিতে শুরু করবে।

মানুষ যখন ক্রসফায়ার দেখতে দেখতে অভ্যস্থ হয়ে যাবে, তখন শুরু হবে পাইকারিহারে গুম করা৷ এবার গুমের স্বীকার যেমন রাজনৈতিক ব্যক্তিরা হবে, তেমনি সাধারণ মানুষও গুমের স্বীকার হবে৷ কারণ, সরকারের প্রয়োজন ভয় সৃষ্টি করা। ভয়ের চেয়ে বড়ো অস্ত্র আর কিছু নেই!

মানুষ যখন ভয়ে তটস্থ হয়ে পড়বে, ঠিক তখনই সরকার নির্বাচন দিবে৷ আর সেই নির্বাচনে না প্রয়োজন পড়বে ডাকাতি করার, আর না প্রয়োজন পড়বে ভোটকেন্দ্র দখল করার।
চুপ থাকবেন তো ভয়ের গহীন অন্ধকারে হারিয়ে যাবেন। আর এই অন্ধকার আর কখনো কাটবে কিনা, তা বলা সত্যিই কঠিন হয়ে যাবে। ভয় নয়, প্রয়োজন প্রতিবাদের। প্রতিটি হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ হোক।

পঠিত : ৩৩ বার

ads

মন্তব্য: ০