Alapon

হেদায়েতের জন্য কৃতজ্ঞ হওয়ার অর্থ কী...?



আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা বলেন- اِنَّا هَدَیۡنٰهُ السَّبِیۡلَ اِمَّا شَاکِرًا وَّ اِمَّا کَفُوۡرًا - "আমি তাকে পথ দেখিয়ে দিয়েছি, পথের দিশা দিয়েছি..." (৭৬:৩) আল্লাহ প্রত্যেকটি মানুষের ভেতরে প্রোগ্রাম করে দিয়েছেন যে, এই জীবনে তারা একটি সফরে আছে।

এখন, এই সফরের একটি দিক... উপলব্ধি করেন বা না করেন আপনি একজন মুসাফির। "اِنَّکَ کَادِحٌ اِلٰی رَبِّکَ کَدۡحًا فَمُلٰقِیۡهِ" (৮৪:০৬) প্রতিটি দিন যে গত হচ্ছে, জীবন হলো একটি সফর। প্রতিটি মানুষ মৃত্যুর দিকে এক পা দু পা করে এগিয়ে চলছে। আমাদের প্রত্যেকে। প্রতিটি দিন, আগের দিনের চেয়ে আরও একদিন মৃত্যুর কাছাকাছি হচ্ছি। সেই ভ্রমণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে এগিয়ে চলছে। এখানে আমার আপনার কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আল্লাহ ইতোমধ্যেই এটা ঠিক করে দিয়েছেন।

কিন্তু এছাড়াও রয়েছে আরেকটি সফর। আমার জীবনের সফর নয়। বরং আমার হৃদয়ের ভেতরের এবং আমার মস্তিষ্কের ভেতরের সফর। আল্লাহ চান আমরা যেন আল্লাহর দিকে প্রত্যাবর্তন করার একটি সফর করি। আমরা আল্লাহর কাছ থেকেই এসেছি। আমরা আল্লাহর জন্য। আর আল্লাহ চান আমরা যেন ইচ্ছে করেই আল্লাহর পথের দিকে ফেরার সংকল্প করি। আমাদের মাথায়, আমাদের অন্তরে।

কিন্তু আমাদের মন অন্য কারো কাছ থেকে স্বীকৃতি পাওয়ার নেশায় বুঁদ হয়ে আছে। এটা অন্য মানুষদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পেতে চায়। কিন্তু, আল্লাহ চান আমাদের হৃদয় এবং মস্তিষ্ক যেন সবার আগে আল্লাহর কাছ থেকে স্বীকৃতি পাওয়ার নেশায় ব্যস্ত হয়ে থাকে। আমার রব কি আমার প্রতি খুশি? আমার রব কি আমার ভালো কাজটির দিকে তাকিয়ে খুশি হয়েছেন? আমার এই সেবা দেখে কি আমার রব খুশি হয়েছেন? আমি কি আমার জীবন এমভাবে অতিবাহিত করছি যে, একদিন যখন এই ভ্রমণের সমাপ্তি হবে তাঁর সাথে আমার সাক্ষাৎ হবে এবং তিনি আমার প্রতি সন্তুষ্ট হবেন?

তিনি বলেন "ইম্মা শাকিরান"... আল্লাহ মানুষকে এই সফরে এগিয়ে যাওয়ার সামর্থ্য দিয়ে সৃষ্টি করেছেন। আর তার জন্য রয়েছে পছন্দ করার দুইটি বিষয়। আমি আপনি আমাদের প্রত্যেকের জন্য রয়েছে দুইটি পছন্দ করার বিষয়। হয় আমরা কৃতজ্ঞ অথবা আমরা চরম অকৃতজ্ঞ। ইম্মা শাকিরান ওইম্মা কাফুরান।

চলুন, সাধারণ ভাষায় কৃতজ্ঞতার অর্থ বুঝার চেষ্টা করি। যদি আমি আমার ছেলেকে একটি সাইকেল কিনে দেই আর সে বলল, থ্যাঙ্ক ইউ বাবা। ধন্যবাদ আব্বা। আমি তাকে বাই-সাইকেল কিনে দিলাম। কিন্তু সে জীবনেও এটাতে ছড়েনি। সে বাড়ির একপাশে এটি ফেলে রাখল। কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে রাখল। এখন, ঐ থ্যাঙ্ক ইউর কোনো অর্থ নেই। কেন? কারণ সে যদি সাইকেলটি প্রতিদিন চালাত, পরিষ্কার করতো, প্রতিদিন এর যত্ন নিত তখন আমি বলতাম আমার ছেলে সাইকেলের জন্য কৃতজ্ঞ। কিন্তু সে যদি কখনো এটি ব্যবহার না করে ফেলে রাখে...সে যতই সাইকেলের জন্য ধন্যবাদ দিক না কেন এটা কোনো ব্যাপার না। সাইকেলটা যে পড়ে থেকে ধুলা বালি সংগ্রহ করছে তাই তার কথাগুলো ফাঁকা বুলি ছাড়া আর কিছুই নয়। এর নাম কৃতজ্ঞতা নয়। সহজে বুঝা গেলো তো?

যখন আল্লাহ আমাকে হেদায়েত দিয়েছেন, আল্লাহ আমাকে এই জীবনের একটি লক্ষ্য দিয়েছেন আর আল্লাহ বলেছেন তুমি কি এই হেদায়েতের জন্য কৃতজ্ঞ হবে? আমি কি সেই হেদায়েতের জন্য কৃতজ্ঞ হব, নাকি হব না?

তার মানে- আল্লাহ আমাকে যা দিয়েছেন যদি আমি তা ব্যবহার না করি, যদি আমি তা জীবন চলার পথে কাজে না লাগাই, তখন আমি যত খুশি আলহামদুলিল্লাহ বলতে পারি, এটা অর্থহীন। আমি তো উপহারটি ব্যবহার করছি না। আমি কোনোভাবেই এটি কাজে লাগাচ্ছি না। এটাই হলো ইম্মা শাকিরান ওয়া ইম্মা কাফুরা।

- নোমান আলী খান

পঠিত : ৪০ বার

ads

মন্তব্য: ০