Alapon

"হিজাবী ফেমিনিস্ট আপুদের মাতৃত্ব ছাড়া সব কিছুই ভাল লাগে"




হিজাবী ফেমিনিস্ট আপুদের মাতৃত্ব ছাড়া সব কিছুই ভাল লাগে ৷ আল্লাহ তাদের উপর যা চাপান নাই, কিংবা তারা যা না করলেও চলতে পারেন সেসব কাজের বোঝা নিজের কাঁধে তুলে নেন তারা জাস্ট "আমি কি হনুরে" হিসেবে জাহির করার জন্য, বা কথিত শিক্ষিত ও সফল নারীর সামাজিক স্ট্যাটাস কু বজায় রাখার জন্য, কিংবা একটু ল্যাভিস লাইফস্টাইল মেনটেইন করার জন্য(সবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য না, একান্ত বাধ্য হয়ে অনেক প্র্যাক্টিসিং মা বোনকে বাচ্চা আর ঘর ফেলে বাইরে কাজ করতে হয় এটা ঠিক)৷

এরপর, বাচ্চা পালনে সময় দেয়া লাগলেই তাদের ফেসবুকে এসে শুরু হয়ে যায় ম্যাও ম্যাও কান্নাকাটি আর পুরুষ বিদ্বেষ উগরানো,
"৯-৫ টা এসি চেয়ারে বসে সামান্য অফিস করো, বাসার কাজ কি করো, দেখো আমরা কি করছি ভার্সিটি টিচিং সামলাই, পিএইচডি করি, রাইটিং করি, ব্যবসা করি, তারপর বাচ্চা আর ঘর সামলাই"।


আচ্ছা সব বেডা মানুষ কি এভাবে এসিতে বসে রোজগার করে? আর এসিতে বসে কাজ করলে কষ্ট নাই? মেন্টাল রিসিশান নাই? পুরুষের কাজের প্রতি হিউমিলিয়েশনটা দেখেন!।
আবার এরাই বলে তারা নাকি তাদের কাছের নারীরা জামাইর এপ্রিশিয়েশন পায়না এসব দেখে ক্যারিয়ারিস্ট হয়! এটা একটা ডাহা মিথ্যা কথা। এরা নিজের হাই এম্বিশনের কারণে ও ফ্যামিনিজমের প্রভাবে ক্যারিয়ারিস্ট হয় মূলত, তারপর মাতৃত্ব নিয়ে এলার্জি প্রকাশ করে যখন সমালোচিত হবে, তখন বলবে তোমরা বেডারা এপ্রিশিয়েট করোনা বলেই আমরা ক্যারিয়ারিস্ট হই!! আবার নিজের আপন বেডা মানুষ মানে নিজেদের জামাই আর বাপদের বাঁচায় নিবে এই বলে তারা খুব কেয়ারিং, অন্যরা শুধু খারাপের খারাপ। কি লেভেলের হিপোক্রেসি দেখেন!

এটা অস্বীকার করছিনা, নারীরা নানাভাবে নিজ গৃহে নিগৃহীত, অবমূল্যায়িত হয়৷ কিন্তু এজন্যই মোটাদাগে দ্বীনি আপুরা ক্যারিয়াস্টি হয় এটা পুরাই মিথ্যা কথা ৷ মূলত হাই এম্বিশন আর ফ্যামিনিজমের প্রভাবেই উনারা ক্যারিয়ারিস্ট হয়ে থাকেন । কিন্তু মাতৃত্বে বিরক্তি আর পুরুষ বিদ্বেষ দেখানোই সমালোচিত হলে, জাস্ট ওই ছুতো দেখান।

বাচ্চা ও ঘর সামলানোটা দিন শেষে তাদের কাছে মহা বিরক্তিকর কাজ ৷ এত দ্বায়িত্বের বোঝা নিজের উপর নিজে চাপিয়ে দিয়ে বাচ্চা ও ঘর সামলাতে তো কষ্ট হওয়াটাই স্বাভাবিক। এসব কথা জেনারেল আপুরা বললে ঠিক আছে, তারা হয় প্র্যাকটিসিং না কিংবা দ্বীনি জ্ঞানের স্বল্পতা আছে, তাদের সাথে আমাদের তর্ক নাই, কিন্তু তথাকথিত দ্বীনি আপুরা যখন বাচ্চা পালন টাকে মাইনর আর বিরক্তিকর হিসেবে প্রেজেন্ট করে,আর ক্ষণে ক্ষণে উষ্মা প্রকাশ করে পোস্টায়, তখন প্রশ্ন জাগে আপনি কোন টাইপের দ্বীনি আপু হইলেন ভাই!
আল্লাহ আপনার জন্য যে দ্বায়িত্বগুলাকে খাস করেছেন তাতেই আপনার যত্ত বিরক্তি আর এলার্জি ক্যান?? এজন্যই আল্লাহ যার জন্য যেটা নির্ধারণ করেছেন তাতেই প্রকৃত শান্তি৷ এর ব্যত্যয় হলে শরীর আর মনের শান্তি নষ্ট হবেই৷ এটাই ফিতরাত ৷ আর একান্ত যদি ক্যারিয়ারিস্ট হতেও চান, বাচ্চা পালনের স্বার্থে কিছুদিন নিজের ক্যারিয়ারের সাথে নেগোশিয়েট তো করতে পারেন অন্তত। তাও তো করতে রাজি না আপনারা; আপনাদের তো একই সাথে দ্বীনি বোন আবার ফ্যামিনিজমে প্রভাবিত হয়ে পুরুষের সাথে টেক্কা দেয়া, পুরুষকে পিছনে ফেলা তথাকথিত সফল নারী হিসেবে নিজেকে জাহির করতে হবে।

আপনি স্বেচ্ছায় নিজের উপর দ্বায়িত্বের বোঝা চাপায় যখন দিয়েই ফেলেন নিজেনিজে, তাহলে দ্বীন বুঝা আপু হয়েও আবার বাচ্চা ও ঘর সামলানো নিয়ে এত উষ্মা দেখান কেন?? আল্লাহর দেয়া এই খাস দ্বায়িত্ব গুলোও আনন্দচিত্তে করতে পারেন না? বাহির সামলাতে আপনার খুব আরাম লাগে, ঘরে সামলাতেই শুধু ব্যারাম!

আর কেউ কেউ তো আছে এসবের পাশাপাশি সারাক্ষণ আমি নারী হয়েও হেন হেন করি তুমি পুরুষ কী কী করো হ্যা !? এসব বইলা শুধু কম্পেয়ার করবে আর পুরুষ বিদ্বেষ উগরাইবে। আপনাকে তো আপনার পুরুষ হ্যান ত্যান করতে বাধ্য করেনাই দ্বীনি আপু, তাহলে সারাক্ষণ হ্যান করেগা ত্যান করেগা করতে থাকেন কোন দুঃখে!! এরোগ্যান্ট, পুরুষ বিদ্বেষী হিজাবী ফ্যামিনিস্টদের এগুলা বুঝাবে কে?

পঠিত : ৩০০ বার

মন্তব্য: ০