Alapon

মসজিদে দানের হালচাল এবং কিছু কথা...



বাড়ি গেলে আমাকে একটা কবরস্থান পার হয়ে যেতে হয়। ছোটবেলা থেকে দেখছি, সেই কবরস্থান সংলগ্ন একটি মসজিদ বানানো হচ্ছে। সেই মসজিদ বানানো দেখতে দেখতে আমি ছোটো থেকে বড়ো হয়ে গেলাম, কিন্তু সেই মসজিদের নির্মাণ কাজ আজও শেষ হলো না।
সেই নির্মাণাধীন মসজিদের সামনে মসজিদের খাদেম ও মুয়াজ্জিনরা দানের টাকা নেওয়ার জন্য চেয়ার-টেবিল নিয়ে বসে থাকেন।

একদিন সেখানে গিয়ে ১০০ টাকা দান করে তাদের সাথে গল্প করতে বসে গেলাম। ১০০ টাকা দান করায় তারা আমার উপর দারুণ খুশি ছিলো। গল্প করতে করতে এক সময় জিজ্ঞেস করলাম, তারা কমিশন কতো পান! তারা বললেন, ১০০ টাকায় তাদের ৫০ টাকা কমিশন থাকে! মানে আমি যে ১০০ টাকা দান করেছি, তার মধ্যে ৫০ টাকা যাবে খাদেমের পকেটে আর ৫০ টাকা যাবে মসজিদের ভাগে!

আর ঢাকায় যেখানে থাকি তার অদূরেই একটা মসজিদ আছে। সেই মসজিদের খাদেম আর মুয়াজ্জিন দৈনিক দানের টাকা তোলার জন্য টেবিল-চেয়ার নিয়ে বসে থাকে। তাদের এই কর্মকাণ্ড গত ৮ বছর থেকে লক্ষ্য করছি।

একদিন তাদেরকে ৫০ টাকা দান করে গল্প করতে বসে গেলাম। গল্প করতে করতে একসময় তাদের কমিশন নিয়ে প্রশ্ন করলাম। তারা জানালো, শতকে তাদের কমিশন ৪০ টাকা। মানে কেউ ১০০ টাকা দান করলে খাদেমদের পকেটে যাবে ৪০ টাকা। জিজ্ঞেস করলাম, 'আপনাদের দৈনিক কত টাকা কমিশন থাকে?' তারা বলল, 'এমনিতে দৈনিক ৩০০-৪০০ টাকা থাকে! তবে শুক্রবারে বেশি পাওয়া যায়!'

এই হলো মসজিদে দানের হালচাল!

দিন কয়েক পূর্বে পরিচিত এক ভাই তার বাবার মৃত্যু দিবস উপলক্ষে মসজিদে বেশ বড়ো অংকের টাকা দান করতে চাইলেন। তাকে বললাম, আপনার দানকৃত টাকার কমিশন খাদেম-মুয়াজ্জিনদের খাওয়ানোর চেয়ে, আপনার গরিব ও অসহায় নিকটাত্মীয়দের খাওয়ান। মহান আল্লাহ তাতেই বেশি খুশি হবেন।

পঠিত : ৮৫৪ বার

মন্তব্য: ০