Alapon

তুরস্কের নির্বাচন : কোন পক্ষ কোন দিকে? আমি কাকে সাপোর্ট করি?




তুরস্কের নির্বাচনে আপনি কাকে সমর্থন করেন?

- ইসলামি কোনো দলকেই করবো। যারা আল্লাহর দীনকে বিজয়ী করতে চায়।

তুরস্কে তো সাংবিধানিকভাবে কোনো ইসলামি দল নেই। তাহলে?

- তাহলে ইসলামপন্থী কাউকে, মানে যিনি সরাসরি ইসলামি দল না হলেও ইসলামি আন্দোলনের সেন্স লালন করেন, এমন কোনো দলকেই সমর্থন করবো। তা-ও না থাকলে ইসলামি আন্দোলন হিসেবে পরিচিত না, বা ইসলামি আন্দোলন করেন না কিংবা ইসলামকে ভিত্তি করে রাজনীতি করেন না, কিন্তু ইসলাম ও মুসলমানদের জন্য উপকারী; এমন কাউকেই সমর্থন করবো।

কিন্তু তুর্কীয়ে তো কিছুটা ইসলামি দুয়েকটা দল আছে। তার মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে নাজমুদ্দিন এরবাকান যে দলটি সর্বশেষ রেখে গিয়েছেন, সেটা। সাদাত পার্টি নাম সে দলটির।

- হ্যাঁ, তাহলে তো তাদেরকেই সমর্থন করবো। তবে তারা ২-৩% ভোটও পাওয়ার সম্ভাবনা নেই, সে কারণে তারা যে জোটে আছে, সে জোটকেই সমর্থন করবো।

কিন্তু তারা তো কামাল আতাতুর্কের দল, কট্টর বামপন্থী ইসলাম বিদ্বেষী সিএইচপির সঙ্গে জোট করেছে। বামপন্থীদের উদ্দেশ্যে হচ্ছে এরদোয়ানকে হারানো।

- কিন্তু কেন তারা এরদোয়ানকে হারানোর জন্য এতো উঠেপড়ে লেগেছে?

কারণ হচ্ছে এরদোয়ান যে অন্যান্যদের তুলনায় ইসলাম ও ইসলামি মূল্যবোধের প্রতি কিছুটা শ্রদ্ধাশীল এবং LGBTQ এর বিরুদ্ধে মজবুতভাবে অবস্থান গ্রহণ করেছে, সেজন্য।

- কী!! আর সেই দলের সঙ্গেই নাজমুদ্দিন এরবাকানের উত্তরাধিকারী তেমুল কারমুল্লাহ ওলুর সাদাত পার্টি জোট করেছে?

হ্যাঁ, তা-ই করেছে। শুধু তা-ই নয়। এই জোট গঠন ও ঘোষণা হয়েছে সাদাত পার্টির অফিসেই !

- খুবই দুঃখজনক বিষয়। তবে এটা হয়তো ভালোর জন্যই করেছে। এরদোয়ানকে হারাতে ইসলামপন্থীদের দরকার আছে। আর সেই দরকারটাকে কাজে লাগিয়ে সাদাত পার্টি নিশ্চয়ই ইসলাম ও ইসলামি মূল্যবোধের পক্ষে কাজ করবে। তুর্কী মুসলমানদের জন্য অনেকগুলো অনেকগুলো অধিকার ও দাবিদাওয়া আদায় করে নিতে পারবেন। আর সেটা না পারলেও দল হিসেবে সাদাত পার্টি নিজের একটা সুসংহত অবস্থান নিশ্চিত করতে পারবেন।

- উঁহু, না না! বিষয়টা এরকম সরল না। জটিল আছে। সাদাত পার্টি কামাল আতাতুর্কের দল, কট্টর বামপন্থী সিএইচপির সাথে জোট করেছে ঠিকই। কিন্তু নিজেদের প্রতীকে এবার নির্বাচন করতে পারবে না। এভাবেই চুক্তি হয়েছে সিএইচপির সাথে।

হ্যাঁ? কী বলেন? আসলেই কি তাই?

- হ্যাঁ, আসলেই তাই। আরো ইন্টারেস্টিং বিষয় আছে।

কী সেটা?

- সেটা হচ্ছে কামালবাদী বামপন্থী কামাল খিলিচদারওলুর নেতৃত্বাধীন মিল্লেত ইত্তিফাক LGBTQ এর পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।

তাহলে LGBTQ এর বিষয়ে এরদোয়ানের অবস্থান কী?

- এরদোয়ান শক্তপোক্তভাবে LGBTQ এর বিপক্ষে অবস্থান গ্রহণ করেছে। যার কারণে পশ্চিমা শক্তিও খুব জোরেশোরে এরদোয়ানের পতন চায়।

তো LGBTQ এর বিষয়ে সাদাত পার্টির অবস্থান কী? ভোট ২-৩% হলেও বা সিএইচপির সাথে জোট করলেও তারা তো ডানপন্থী। কিছুটা ইসলামি মূল্যবোধ সম্পন্ন একটা দলও বটে।

- এক্ষেত্রেও সাদাত পার্টির অবস্থান ভীষণ দুঃখ ও হতাশাজনক ! তারা তো আর জোটের বাহিরে যেতে পারবে না। তাদের জোট তো এসবের পক্ষে।

না না, সেটা তো বুঝতে পারছি। কিন্তু তাদের কোনো নেতা এর বিরুদ্ধে অবস্থান জানান দেননি ?

- হ্যাঁ, দিয়েছেন। বর্তমানে সাদাত পার্টির একমাত্র এমপি, তাদের ইয়ুথ শাখার চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের কাদারদোয়ান LGBTQ এর বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে।

বাহ! মা শা আল্লাহ। যুবকরাই তো চেইঞ্জ মেকার। প্রবীণদের দ্বারা এই ঘৃণ্য কাজের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু যুব পার্টির চেয়ারম্যানের দ্বারা তো সম্ভব হয়েছে।

আচ্ছা, তার কী অবস্থা এখন?

- হা হা! কী আর হবে অবস্থা? জোট ও দলীয় অবস্থনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলে আর কি'বা হবে! সোজা কথায় তাকে এবার এই নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি!

কিন্তু যারা সরাসরি ইসলাম বিরোধী, ইসলামি মূল্যবোধ বিদ্বেষী, তাদের সাথেই এরদোয়ানকে হারানোর জন্য সাদাত পার্টি জোট গঠন করেছে? LGBTQ এর বিপক্ষে অবস্থান গ্রহণ করা একমাত্র এমপিকে মনোনয়ন দেয়নি। এই কাজগুলো কি সত্যিই করেছে?

- হ্যাঁ হ্যাঁ, সেটাই করেছে। এবং সত্যিই করেছে। তবে আশার কথা হলো প্রফেসর নাজমুদ্দিন এরবাকানের ছেলে ফাতিহ এরবাকানের দলও অনেকটা ইসলামি মূল্যবোধ সম্পন্ন। তিনি এরদোয়ানের জোটে আছেন।

আচ্ছা। এই যখন অবস্থা, তাহলে অবশ্যই আমি সমকামীদের পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করা ইসলাম বিদ্বেষী বামপন্থী সিএইচপি ও সাদাত পার্টির রাজনৈতিক জোট মিল্লেত ইত্তিফাককে সমর্থন করবো না। এরদোয়ানের নেতৃত্বাধীন জুমহুর ইত্তিফাক তথা প্রজাতান্ত্রিক জোটকেই সমর্থন করবো।

তবে হ্যাঁ, যদি সাদাত পার্টি যদি তাদের সমমনা কাউকে নিয়ে ভিন্ন জোট করতো, কামালবাদী ও সমকামীদের পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করা সিএইচপির সঙ্গে জোট গঠন না করতো, তাহলে আমি তুরস্কের বাস্তবতা বিবেচনায় যেহেতু তারা কিছুটা হলেও ইসলামিক, সেহেতু তাদেরকেই সার্বিকভাবে সাপোর্ট করতাম। কিন্তু এখন তাদের থেকেও ইসলাম ও ইসলামি মূল্যবোধের জন্য (তুরস্কের প্রেক্ষাপটে আরকি) এরদোয়ানকে বেশি ভালো মনে করি বিধায় এরদোয়ানকেই সাপোর্ট করবো। একেবারে কোনো দ্বিধা ও হীনমন্যতা ছাড়াই।

আরেকটা কথা, সুদূর বাংলাদেশ থেকে আমার মতো অখ্যাত কেউ তুরস্কের কাউকে সমর্থন করায় বা না করায় কিছুই আসবে যাবে না! তবুও জাস্ট নিজের অবস্থানটা জানানো আরকী।

[ ছবিতে সাদাত পার্টির ইয়ুথ শাখার চেয়ারম্যান ও একমাত্র এমপি আব্দুল কাদের কাদারদোয়ান যিনি LGBTQ এর বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ার কারণে বামপন্থী সিএইচপি ও সাদাত পার্টির রাজনৈতিক জোট মিল্লেত ইত্তিফাক কর্তৃক মনোনয়ন পায়নি।]

~রেদওয়ান রাওয়াহা
১৩.০৫.২৩

পঠিত : ৩৭৩ বার

মন্তব্য: ০