Alapon

সালাম দেওয়ার কিছু ব্যাকরণিক রীতি



আসসালামু আলাইকুম ( আপনাদের উপর শান্তি (বর্ষিত হোক)) – ইসলামের এই Greeting টি সত্যই সুন্দর ও অত্যন্ত অর্থপূর্ন । এই সম্ভাষণ কে আরো সুন্দর ও সঠিক করার জন্য এই বিষয়ক অল্প কিছু আরবি ব্যকরন এর রিতি আর কোরানের কিছু আয়াত তুলে ধরায় এই সংক্ষিপ্ত আলোচনার মূল উদ্দেশ্য ।

প্রথমে আমাদের অতি পরিচিত সালামের মানেটা জেনে নিই ।

আস-সালামু = শান্তি-টি ( আরবি তে এটা মারিফা/Definite Article)
আলাই-কুম = আপনাদের-উপর

এখানে আরবি ‘-কুম’ / ــكم এর ব্যবহারটাই এই আলোচনার প্রধান লক্ষ্য । আরবি ব্যকরনে Pronoun দুই ধরণেরঃ

০১) Subject Pronouns (দামায়ের ফা’য়েল)
০২) Object Pronouns (দামায়ের মা’ফুল-বিহি)

এই দুই সর্বনাম আবার প্রত্যেকে দুই ভাগে বিভক্তঃ

ক) Detached Subject/Object Pronouns ( মুনফাসিল)
খ) Attached Subject/Object Pronouns (মুত্তাসিল)

সালামে ব্যবহৃত ‘আলাই’ এর শেষে যুক্ত ‘-কুম’ এই রকম Attached Object Pronoun যা সালাম কাকে উদ্দেশ্য করে দেওয়া হচ্ছে তার উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হবে । সালাম কাকে বা কাদেরকে দেওয়া হচ্ছে অর্থাৎ পুরুষ বা নারী ও তাদের স্ংখ্যা কয়জন এর রকম ভেদে নিচের যুক্ত সর্বনামগুলো ব্যবহৃত হয়ঃ

-৩ এর অধিক পুরুষ অথবা ৩ এর অধিক নারী ও পুরুষ এর মিশ্রণ হলে হবে …আলাই-কুম
আস-সালামু আলাই-কুম/ ٱلسَّلَامُ عَلَيْكُمْ

-৩ জন এর অধিক শুধু নারী হলে …আলাই-কুন্না
আস-সালামু আলাই-কুন্না / ٱلسَّلَامُ عَلَيْكُنَّ

- ২ জন নারী বা ২ জন পুরুষ হলে উভয়েরই জন্য …আলাই-কুমা
আস-সালামু আলাই-কুমা /ٱلسَّلَامُ عَلَيْكُمَا

-১ জন পুরুষ হলে …আলাই-কা
আস-সালামু আলাই-কা / ٱلسَّلَامُ عَلَيْكَ

-১ জন নারী হলে …আলাই-কি
আস-সালামু আলাই-কি /ٱلسَّلَامُ عَلَيْكِ

সালামের জবাব দেওয়ার সময় সালামদাতার সংখ্যা ও লিঙ্গভেদে একিভাবে উপরের উপযুক্ত Attached Pronoun ব্যবহার করে ‘ওয়া আলাই-() আস-সালাম’ বলতে হবে ।

আমাদের বাংলাদেশে ‘আস-সালামু আলাই-কুম’ বলে সর্বজনিনভাবে সবাই সালাম দেয় কিন্তু আরব দেশগুলোতে ব্যকরনের সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমেই সালাম দেওয়া হয় , তাই তাদের সাথে সালাম বিনিময় করতে যেয়ে যেন আমরা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে না পরি ।

এবার আমরা আল্লাহ (সোঃতাঃ) এর কিতাব থেকে সালাম-সম্ভাষন নিয়ে কিছু আয়াত দেখব এবং কোরানের শিখানো সালাম এর আদলেই সালাম দেওয়ার অভ্যাস তৈরি করব ইন-শা-আল্লাহ ।

৬:৫৪ আর যারা আমার আয়াতসমূহের উপর ঈমান আনে, তারা যখন তোমার কাছে আসে, তখন তুমি বল, ‘তোমাদের উপর সালাম/সালামুন আলাইকুম/سَلٰمٌ عَلَیۡکُمۡ’

৭:৪৬ আর তাদের মধ্যে থাকবে পর্দা এবং আ‘রাফের উপর থাকবে কিছু লোক, যারা প্রত্যেককে তাদের চি‎‎হ্ন দ্বারা চিনবে। আর তারা জান্নাতের অধিবাসীদেরকে ডাকবে যে,‘তোমাদের উপর সালাম/সালামুন আলাইকুম/سَلٰمٌ عَلَیۡکُمۡ’।

১০:১০ সেখানে তাদের কথা হবে, ‘হে আল্লাহ, তুমি পবিত্র মহান’ এবং তাদের অভিবাদন হবে, ‘সালাম/সালামুন/سَلٰمٌ’। আর তাদের শেষ কথা হবে যে, ‘সকল প্রশংসা আল্লাহর, যিনি সকল সৃষ্টির রব’।

১১:৬৯ আর অবশ্যই আমার ফেরেশতারা সুসংবাদ নিয়ে ইবরাহীমের কাছে আসল, তারা বলল, ‘সালাম/সালামান/سَلٰمًا’। সেও বলল, ‘সালাম/সালামুন/سَلٰمٌ’। বিলম্ব না করে সে একটি ভুনা গো বাছুর নিয়ে আসল।

১৩:২৪ ‘‘তোমাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক/সালামুন আলাইকুম/سَلٰمٌ عَلَیۡکُمۡ, কারণ তোমরা ধৈর্যধারণ করেছিলে। কতই না উত্তম পরকালের এই ঘর!’

১৪:২৩ আর যারা ঈমান আনে এবং নেক আমল করে তাদের জান্নাতে প্রবেশ করানো হবে, যার তলদেশে নহরসমূহ প্রবাহিত হবে, তারা তাতে তাদের রবের অনুমতিক্রমে স্থায়ী হবে। তথায় তাদের অভিবাদন হবে ‘সালাম/সালামুন/سَلٰمٌ’।

পঠিত : ১৮৪ বার

মন্তব্য: ০