Alapon

শহীদি কবিতা- কৃষ্ণচূড়া


কৃষ্ণচূড়া ফুলগুলো আমাকে-
আমাদের শহীদ ভাইদের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়,
স্মরণ করিয়ে দেয় তাঁদের ঘাম, রক্ত ও আত্মত্যাগের কথা
স্মরণ করিয়ে দেয় জালিমের বিরুদ্ধে তাঁদের বীরত্বগাঁথা।
কৃষ্ণচূড়া ফুলগুলো আমাকে-
আমাদের শহীদ ভাইদের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।

কৃষ্ণচূড়ারা আমাকে বলতে চেষ্টা করে
তোমাদের শহীদ ভাইদের খুনেই তো আমি রক্তবর্ণ ধারণ করেছি,
আমার পাতাগুলো তো এখনো সবুজ রয়ে গেছে, বরং সবুজ‌ই রেখেছি;
সবুজ এই জমিনকে তারা কীভাবে উর্বর করেছেন তা প্রমাণ করতে!

কৃষ্ণচূড়া ফুলগুলো আমাকে বলতে চায়
আমার জন্ম তো রেসকোর্সের কোণায়
শহীদ আব্দুল মালেকের রক্তে আমি রঞ্জিত হয়েছি।
আমার বেড়ে উঠা তো মতিহার চত্বরে
শহীদ সাব্বির, আইয়ুব, জব্বারের রক্তেই তো আমি রক্তিম হয়েছি!
আমার পূর্বপুরুষেরা তায়েফ, বদর, উহুদ থেকে এসেছে,
তায়েফের খেজুর বাগানের এক কোণে রাসূলের খুনে তারা জন্মলাভ করেছে!
বদরের খুনরাঙা আঙিনায় তাঁরা বেড়ে উঠেছে, উহুদের পাদদেশে তাঁরা বিরাট মহীরুহে পরিণত হয়েছে!

কৃষ্ণচূড়াকে তাই আমি রক্তচূড়া বলে ডাকি।
আমার কাছে মনে হয় আমাদের রাহবারদের জান্নাতী খুশবু ছড়াতে তারা বোশেখের রৌদ্রঝড়েও ঠায় দাঁড়িয়ে থাকে‌।
তাঁদের শাহাদাতের সাক্ষী হয়েই যেন তারা পৃথিবীকে সুশোভিত করে যাচ্ছে অনন্তকাল
রক্তচূড়ার ডালে বুলবুলিরা গেয়ে ওঠে শহীদ জননীদের পবিত্র গীতিকাব্য!

পঠিত : ১২৪ বার

মন্তব্য: ০