Alapon

মাদরাসা পড়ুয়া ছোট্ট শিশুটি হয়ে উঠছে তথ্য সন্ত্রাসী

আমাদের মাদরাসা পড়ুয়া ছোট্ট বন্ধুরা কি শিখছে!
অবাক হয়েছেন নিশ্চয় লাইনটি পড়ে। অবাক হওয়ার কথাই বলছি। আজ ভিডিও দেখলাম একটি। ভিডিওতে খুদে মাদরাসা ছাত্র বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জ্বালাময়ী বক্তব্য দিয়েছে। তাতে আমার নাখোশ হওয়ার কারণ নেই। কিন্তু খেয়াল করে দেখলাম তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুকে ইমাম হোসাইন রাঃ এর শাহাদাতের প্রেক্ষাপটের সাথে তুলনা করেছে। এটা শোনার পরে আর ভিডিওর কথাগুলো শুনতে আগ্রহী হইনি।
জানলাম শিশুটি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আয়োজিত মাদরাসা শিক্ষার্থীদের নিয়ে আমাদের বঙ্গবন্ধু শীর্ষক প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে প্রথম হয়েছে। অবাক হলাম এটা জেনে যে,শিশুটি পড়াশোনা করছে দেশের শীর্ষস্থানীয় দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তামীরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, টঙ্গী শাখায়। যে প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতারা এই বঙ্গবন্ধুর তনয়ার হাতেই শাহাদাতের পেয়ালা পান করেছে। যাদের হাঁড় ভাঙ্গা পরিশ্রমে এই দ্বীনি প্রতিষ্ঠানের জন্ম সেখান থেকে এমন শিক্ষার্থী তৈরি হবে তা ভেবেই কূল পাচ্ছি না।
শুধু মাত্র টাকা ও কিছু বৈষয়িক সাফল্যের জন্য আমাদের অভিভাবকরা তাদের ছোট্ট সোনামণিদের দামী মাথা বিক্রি করে দিচ্ছে ইতিহাস বিকৃত কারীদের নিকট। সন্তানকে তৈরি করছে ইসলাম বিদ্বেষী হিসেবে।
আহ মিল্লাত! শহীদদের রেখে যাওয়া হাতের ছোঁয়া গুলোর নীরব কান্না কেউ হয়তোবা শুনতে পাবে না, কেউ দেখবে না শহীদদের রেখে যাওয়া স্বপ্ন গুলোর এভাবে অপমৃত্যু।
এভাবেই তৈরি হচ্ছে হাজারো তথ্য সন্ত্রাসী। যাদের কাজ হবে আগামীতে অনাগত প্রজন্মকে মুজিব বন্দনায় নিমগ্ন রাখা।

পঠিত : ১১৯ বার

মন্তব্য: ০