Alapon

ইসলাম বিভাগের পোস্টসমূহ

কুরআন খতমের ব্যাপারে ইসলামের নির্দেশনা কী?

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৫-০৬ ১৫:২৮

একবার রাসূল সা. আব্দুল্লাহকে ডেকে পাঠালেন। এই আব্দুল্লাহ হলেন বিখ্যাত সেনাপতি ফিলিস্তিন ও মিশর বিজয়ী আমর ইবন আল-আসের সন্তান। আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো তিনি পরিকল্পনা করেছেন তিনি প্রতিদিন রোজা রাখবেন, রাতে সালাত আদায় করবেন এবং প্রতিদিন কুরআন পড়ে শেষ…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৬৮ বার

লাইলাতুল কদরের শানে নুজুল

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৫-০৪ ১১:৪২

একবার রাসূল সা. স্বপ্নযোগে দেখতে পেলেন তাঁর জন্য স্থাপিত মিম্বরে উঠে গেছে উমাইয়া বংশের লোকেরা। তিনি খুবই মনঃক্ষুণ্ণ হলেন। এটা সেসময়ের ঘটনা যখন মুহাম্মদ সা. রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হননি। তিনি তখনো মক্কায়।

মুহাম্মদ সা.…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৮৬ বার

ইসলামে শ্রম ও শ্রমিকের অবস্থান

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৫-০১ ১৪:১৪

ইসলাম মানবজীবনের জন্য আশির্বাদ। যখন আরবে দাসদের সাথে এবং গরীব শ্রমিকদের সাথে অমানবিক আচরণ করা হতো তখন আল্লাহর রাসূল সঃ নিয়ে এসেছেন মানবতার বার্তা। যাতে সমাজের প্রত্যেক মানুষের অধিকার নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সকল প্রকার জুলুমবাজি বন্ধ করা হয়েছে।…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৪২ বার

'আসর' নিয়ে ভাবনা-২

Abu Talha Rafi | ২০২১-০৪-৩০ ২৩:০৮

اِنَّ الۡاِنۡسَانَ لَفِیۡ خُسۡرٍ

আল্লাহ তায়ালা বলছেন:“সমস্ত মানুষ ক্ষতির মধ্যে আছে।”
প্রথমে আমাদেরকে এ আয়াতে বর্ণিত ‘খুসর’ শব্দ দ্বারা কী বুঝানো হয়েছে সেটা জানতে হবে।আমরা সাধারণত লাভ বা সফলতা বলতে বুঝি দুনিয়ার জীবনে একটা ভালো চাকুরী পাওয়া অথবা ব্যবসায়ে উন্নতি…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ২২ বার

জালিমদের প্রতি নরম আচরণ জায়েজ নেই

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-৩০ ১১:২৯

বদর যুদ্ধ শেষ। মহানবী সা. বিজয়ীর বেশে মদিনায় প্রবেশ করলেন। সাথে নিয়ে এলেন ৭০ বন্দী। মদিনায় তো কোনো কারাগার নেই। তাহলে এগুলোকে রাখবেন কোথায়? তাই তিনি সাহাবাদের মধ্যে বন্দীদের ভাগ করে দিলেন। সাহাবারা প্রাপ্ত বন্দীদের নিয়ে নিজের ঘরে বেঁধে…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১২০ বার

বনু কাইনুকার বহিষ্কার ও কাব বিন আশ্রাফের মৃত্যদণ্ড

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-২৯ ০৯:৫১

আল্লাহর রাসূল সা. ছিলেন বিচক্ষণ রাষ্ট্রনায়ক। বদর যুদ্ধ থেকে ফিরে আসার পর পরই তিনি গোয়েন্দা তথ্য পান যে, গাতফান গোত্রের শাখা বনু সুলাইম মদিনার বিরুদ্ধে সোইন্য সংগ্রহ করছে। এই খবর পাওয়ার পর মুহাম্মদ সা. দুইশত সৈন্য নিয়ে আকস্মিকভাবে তাদের…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১০৩ বার

'আসর' নিয়ে ভাবনা-১

Abu Talha Rafi | ২০২১-০৪-২৮ ১৫:৩১

সত্যের কথনApril 28, 2021
وَ الۡعَصۡرِ

সুরা আসরের প্রথম আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন,‘সময়ের কসম’
স্বাভাবিক দৃষ্টিতে এই আয়াত সম্পর্কে আলোচনা করার কিছু নেই।আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে অনেক কিছুর শপথ করেছেন,এটা তেমনি একটা শপথ।কিন্তু যদি আমরা এই আয়াত নিয়ে ‘দাব্বারুন’ করি…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৮৪ বার

|| তাঁরা : বদলে দিয়েছে বদলে গিয়েছে-০৩

Post

রেদওয়ান রাওয়াহা | ২০২১-০৪-২৮ ১৪:১৩

কাফিরদের নির্যাতন আর নির্মমতা থেকে রক্ষা পেতে, সুন্দর করে আল্লাহর ইবাদাত পালনের নিমিত্তে আল্লাহর রাসুলের অনুমতিক্রমে হিজরতের উদ্দেশ্যে হাবশায় রওয়ানা দিলেন তাঁরা।

যেতে যেতে অনেক দূর অবধি পৌঁছে গেলেন তাঁরা। পথেই তাদের কর্ণগোচর হলো যে,…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৬৯ বার

দ্বীন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে মুহাম্মদ সা.-এর প্রথম যুদ্ধ

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-২৭ ১০:৫৬

মুহাম্মদ সা. ছিলেন অনন্য রাষ্ট্রনায়ক। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ক্ষুদ্র ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাকালীন থেকেই হুমকির মুখে পড়েছে। নানানভাবে মক্কার মুশরিকরা এই রাষ্ট্রকে ধ্বংস করার জন্য রাষ্ট্রের ভেতর ও বাইরের বিভিন্ন গোষ্ঠীকে সাথে নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেছিল। এক পর্যায়ে মুসলিমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৬৫ বার

যেভাবে রাষ্ট্রের অস্তিত্ব সংকট মোকাবিলা করলেন নবী সা.

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-২২ ১৯:২৪

মক্কার মুসলিমরা সব ছেড়ে চলে আসলো মদিনায়। সেখানে মুসলিম মদিনাবাসীর সহায়তায় প্রতিষ্ঠিত হলো মুসলিমদের কাঙ্ক্ষিত ইসলামিক স্টেট। মক্কার মুশরিকরা মুসলিমদের হিজরত ঠেকাতে প্রাণপণ চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছিল। তবে তাদের চেষ্টা থেমে থাকেনি। তারা মদিনার এই নতুন আধুনিক…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১১৪ বার

মুহাম্মদ সা.-এর মসজিদভিত্তিক রাষ্ট্র ও নয়া সংবিধান

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-২১ ২৩:০৭

মুহাম্মদ সা. যখন মদিনায় এলেন তখন তাঁর সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল মদিনার বিভিন্ন টাইপের মানুষের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি করা ও তাদেরকে রাষ্ট্রের প্রতি আনুগত্য করানো। কারণ মুসলিম ছাড়া বাকিরা মুহাম্মদ সা.-কে নিরঙ্কুশভাবে নেতা মানেন নি। মহানবী সা. তাই…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৫০ বার

প্রশিক্ষণ, পরীক্ষা ও আত্মত্যাগের হিজরত

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-২০ ১২:৪৩

মদিনার মুসলিমরা নতুন রাষ্ট্র গঠনের জন্য বাইয়াত নেওয়ার প্রেক্ষিতে মক্কার মুসলিমদের জন্য নতুন পরীক্ষা নাজিল হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা নির্দেশে আল্লাহর রাসূল সা. মক্কার মুসলিমদেরকে ইয়াসরিব তথা মদিনায় হিজরত করার নির্দেশ দিলেন। এই নির্দেশ দুনিয়ার জাগতিক দিক থেকে অনেক কঠিন।…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৬৮ বার

দ্বীন প্রতিষ্ঠার বাইয়াত ও শয়তানের চিৎকার

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-১৮ ১৭:০০

মিরাজে আল্লাহ তায়ালা মুহাম্মদ সা.-কে রাষ্ট্র পরিচালনার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এবং সে অনুযায়ী মুসলিমদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম সালাত ফরজ করেছেন। সেই সাথে মুসলিমদের উদ্দেশে ১৪ দফা নির্দেশনা নাজিল করেছিলেন। মিরাজের পর আল্লহর রাসূলের জীবনে একের পর এক সাফল্য ধরা দিতে…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৮৩ বার

যে খাতে দান না করলে আপনার টুঁটি চেপে ধরা হবে!

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-১৭ ১৬:২৮

রমাদান মাস চলছে। দান সদকার মওসুম। ফরজ সাদকা থেকে শুরু করে নফল সাদকা, এই মাসে আমাদের সবার দান করার পরিকল্পনা আছে। প্রশ্ন হলো কাকে দান করবেন? কোন খাতে দান করবেন? কোন খাতে দান না করলে আল্লাহ আপনার টুঁটি চেপে…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৬৪ বার

দ্বীন কায়েমের জন্য সবচেয়ে প্রায়োগিক ইবাদত সালাত

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-১৩ ১২:৫২

সালাত মুসলিমদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। এর মাধ্যমে ইকামাতে দ্বীনের কর্মীদের জন্য অর্থাৎ মুসলিমদের জন্য সর্বোচ্চ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই প্রশিক্ষণ সবার জন্য অত্যাবশ্যক করা হয়েছে। আল্লাহর রাসূল সা. সালাতকে ঈমানদার ও কাফিরের মধ্যে পার্থক্যকারী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১৪১ বার

তারাবির সালাতের ব্যাপারে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এহেন সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্য কি?

Post

মোঃ শামীম হাসান | ২০২১-০৪-১২ ২২:৩৬

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে আসন্ন রমাদানে মসজিদে তারাবিহ সালাতে মুসল্লীতের অংশগ্রহনের ব্যাপারে নিয়ম জারী করেছে যে, প্রত্যেক মসজিদে ইমাম, খতিব, মুয়াজ্জিন, খাদেম সহ ২০ জনের বেশি মুসল্লী থাকতে পারবে না।*[০১] তারাবিহ সালাত নিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের প্রতি আমি দ্বিমত…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১৪৬ বার

আরববাসীর প্রত্যাখ্যানের পর আল্লাহর উপহার

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-১১ ২১:২৫

আল্লাহর রাসূল সা. ইসলামের দাওয়াত নিয়ে মক্কায় প্রায় চার বছর প্রকাশ্যে দাওয়াত দিয়েছেন। অল্প-বিস্তর সাফল্য পেয়েছেন। তবে মক্কার বেশিরভাগ মানুষ ইসলামকে প্রত্যাখ্যান করেছে। এরপর তিন বছর ছিলেন অবরুদ্ধ। তারপর অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তি পেয়ে তিনি মক্কার বাইরে তায়েফসহ অন্যান্য…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ৮৫ বার

মুসলমানদের আজকের এ অবস্থার জন্য দায়ী কারা”

মোঃ শামীম হাসান | ২০২১-০৪-১০ ০০:০৯

আজকে আমাদের(মুসলমানদের) এ হীন অবস্থার কারন আমরা নিজেরাই। কোরআন সুন্নাহ থেকে বিরত থাকার ফল। অতীত ইতিহাস থেকে সহজেই বুঝা যায় যে আমরা মুসলমানরা সবদিক থেকেই যে এগিয়ে ছিলাম। মরুপ্রান্তরে যখন থেকে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সঃ) কতৃক ইসলাম ধর্ম নামক অমৃত সুধার প্রচার এবং প্রসার হতে…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১৪৬ বার

প্রত্যাখ্যানের শিকার হলেন মুহাম্মদ সা.

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-০৯ ২৩:২৫

প্রায় ৩ বছর অবরুদ্ধ থেকে মুক্ত হওয়ার পর মুহাম্মদ সা. নতুন পরিকল্পনা হাতে নিলেন। তিনি পর্যবেক্ষণ করে দেখলেন, মক্কায় সবার কাছে দাওয়াত পৌঁছে গেছে। এবার মক্কার বাইরে দাওয়াত দিতে হবে। নতুন পরিকল্পনা অনুসারে প্রথমেই তায়েফ যাওয়ার প্ল্যান করেছিলেন। এরপর…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১০৬ বার

মুহাম্মদ সা. অবরুদ্ধ হয়ে গেলেন তিন বছরের জন্য

Post

আহমেদ আফগানী | ২০২১-০৪-০৮ ২২:০৯

মক্কায় আল্লাহর রাসূল সা.-এর মিছিলের মাধ্যমে শক্তি প্রদর্শন করেন। এরপর থেকে মুসলিমদের ওপর শারীরিক আক্রমণ বন্ধ হয়ে যায়। মুসলিমরা কা'বা চত্বরে দলবদ্ধভাবে নামাজ আদায় শুরু করেন। সেখানে সমাবেশ করেন। তাওয়াফ করেন। আল্লাহর রাসূল সা. সেখানে মুসলিমদের নসিহত করতে থাকেন।…বিস্তারিত পড়ুন

  • লাইক: ৬
  • মন্তব্য: ০
  • পঠিত : ১৩৮ বার
Free Space